পৃথিবীর সেরা ১০ জন ধনী ব‍্যক্তির তালিকা ও তাদের কিছু অজানা তথ‍্য


কথায় আছে, “কীর্তিমানের মৃত্যু নেই”। চোখের সামনে অহরহ ঘটে যাওয়া সব সাফল‍্যের পেছনে যেমন রয়েছে অক্লান্ত পরিশ্রম তেমনি সাফল‍্যের শেখরে পৌঁছনোর পর বিপুল অর্থের সম্রাজ‍্যের সেই মুকুটহীন বাদশাদের কথা আমাদের সবারই কম বেশি জানা। 

দু’মুঠো ভাতের অভাবে হতদরিদ্র মানুষ যেমন আমরা আমাদের চারপাশে দেখতে পাই,তেমনি পাহাড় উঁচু সম্পদশালীদেরও দেখতে পাই। এসব সম্পদশালীদের পৃথিবীর সকল ধনী ব‍্যক্তির ১% মানুষের যত সম্পদ আছে তা পুরো পৃথিবীর বাকি ৯৯% শতাংশ মানুষের সম্পদের চেয়ে ও বেশি। 

এই সব সিংহাসনহীন রাজাদের জীবনের শুরু থেকে শেষটা কেমন ছিল তা নিয়ে কি কখনও ভেবে দেখেছেন। আজ সেইসব ধনী ব‍্যক্তিদের মধ‍্যে মোট দশজনের জীবনবৃত্তান্ত নিয়েই আলোচনা থাকছে আজকের লেখায়। চলুন তবে জেনে নেই পৃথিবীর সেরা দশজন ধনী ব‍্যক্তির তালিকা – 

পৃথিবীর সেরা দশজন ধনী ব‍্যক্তির তালিকা 

সারা বিশ্বব্রক্ষান্ডে সম্রাটদের সেই রাজকীয় লাইফস্টাইল এবং তাদের জিরো থেকে হিরো হবার কিছু চমকপ্রদ অজানা তথ‍্য নিয়ে নিচে কয়েকজন সেরা ধনীদের তালিকা দেয়া হলো। যারা ছিলেন ২০১৮-১৯ সালে পৃথিবীর সেরা দশজন ধনী ব‍্যক্তিদের তালিকায় সবার শীর্ষে। 

১) জেফ বেজোস : 

জেফ বেজোস

সেরা ধনীর তালিকায় সবার প্রথমে যিনি রয়েছেন তিনি হচ্ছেন জেফ বেজোস। পুরো নাম জেফ্রি প্রেস্টোন বেজোস। জন্ম ১৯৬৪ সালের ১২ ই জানুয়ারি, অ‍্যালবাকুরিকের নিউ ম‍্যাক্সিকান, অ‍্যামেরিকাতে। বর্তমানে তিনি একজন সিউ এবং অ‍্যামাজনের উদ‍্যোক্তা। তার মোট সম্পদের পরিমাণ ১১০-১১২ বিলিয়ন ডলার।

 তার বহুল কষ্টার্জিত অ‍্যামাজন আজ বিশ্বের একমাত্র সফল ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। বেজোস তার প্রথম এমাজনের ব‍্যবসা শুরু করেন বেডরুমে। প্রথম অবস্থায় এমাজন ছিল একটি অনলাইন ভিক্তিক বই বিক্রির দোকান। ক‍্যারিয়ারের প্রথমে তিনি ছিলেন একজন ক্ষুদে কম্পিউটার ইন্জিনিয়ার। 

বেজোস ১৯৮৬ সালে প্রিন্সটন ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার ইন্জিনিয়ারিং পাশ করার পর ইনটেল, বেল এবং অ‍্যান্ডারসনের কন্সালটেন্ট এর কাছ থেকে কাজের অফার পান। প্রথমজীবনে তিনি একজন টেলিকমিউনিকেশন অফিসে নেটওয়ার্ক বিল্ডার হিসেবে কাজ শুরু করেন।

 এরপর তার কাজে সফলতা আসা শুরু করে। বহুল চড়াই উৎড়াই পার করে তিনি ১৯৯৮ সালে ডি.ই শো এবং কো এর উদ‍্যোক্তা হন। ত্রিশ বছর বয়সে তিনি এই কোম্পানির সিনিয়র ফোর্থ ভাইস প্রসিডেন্ট এর যোগ্যতা লাভ করেন। 

২) বিল গেটস :

বিল গেটস

বিল গেটসের নামের সাথে কম বেশি আমরা সবাই পরিচিত। বিশ্বের সবচেয়ে বড় মাইক্রোসফট কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা এবং একচ্ছত্র ম‍্যানেজিং ডিরেক্টর। তার মোট সম্পদের পরিমাণ ৯০ বিলিয়ন ডলার। তার পুরো নাম উইলিয়াম হেনরি গেটস থ্রি। 

জন্মগ্রহণ করেন ১৯৫৫ সালের ২৫ শে অক্টোবর, আমেরিকার সিয়াটেল এ, ওয়াশিংটনডিসি তে। পড়াশোনা করেছিলেন হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে যদিও তিনি তার কম্পিউটার ইন্জিনিয়ারিং এর পড়া শেষ করতে পারেন নি। পরবর্তীতে তিনি সফটওয়্যার ডেভলপার এবং ইন্টারপ্রেনার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন।

প্রথমে তিনি একজন কো-চেয়ারম‍্যান এবং কো-ফাউন্ডার ছিলেন বিল এন্ড মালিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের। মালিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনটি তিনি এবং তার স্ত্রীর একটি ব‍্যক্তিগত চ‍্যারিটেবল ফাউন্ডেশন যা প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০০ সালে।

 এর পাশাপাশি তিনি তার ছোটবেলার বন্ধু পল এলেনের সাথে ১৯৭৫ সালে পার্সোনাল বিজনেস শুরু করেন যার নাম আজকে সারাবিশ্ব জুড়ে সবার মুখে মুখে। যদিও তার ব‍্যবসার গোড়ার দিকে মাইক্রোসফট নিয়ে অনেক বাক-বিতন্ডতার শুরু হয়। ২০১৪ সালে তিনি মাইক্রোসফট এর চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত‍্যাগ গ্রহণ করেন এবং “সাটেয়া নাডেল্লার” সিউ হিসেবে যোগদান করেন। 

একজন সফল ইন্জিনিয়ার ছাড়াও তিনি হলেন একজন পিলানট্রপিক ইনডিভেয়ার উনার উল্লেখযোগ্য বিষয় ছিল আবহওয়া পরিবর্তন, বিশ্ব স্বাস্থ্য ইত‍্যাদি। ১৯৮৭ সালে তিনি বিশ্ব ফরবেস সম্পদশালী ব‍্যক্তিদের তালিকাভুক্ত হন।

৩) ওয়ারেন বাফেট : 

ওয়ারেন বাফেট

ওয়ারেন বাফেট বর্তমানের একজন সফল উদ‍্যোক্তা, ব‍্যবসায়ী, ও বক্তা। তার বতর্মান সম্পদের পরিমাণ ৯১ বিলিয়ন ডলার। তিনি আমেরিকার একজন বিজনেস আইকন। বাফেট জন্মগ্রহণ করেন ১৯৩০ সালের ৩০ শে অগাস্ট, আমেরিকার ওমাহা, নেব্রাস্কাতে।

 মাত্র এগার বছর বয়সে তিনি তার প্রথম বিনিয়োগ শুরু করেন। তিনি প্রাথমিক পড়াশোনা শুরু করেন পেনিসেলভানিয়া অফ ইউনিভার্সিটি। তিনি ভার্সিটির বি.এস পড়াশোনা শেষ করেন লিঙ্কন নেব্রাস্কা ইউনিভার্সিটিতে  এবং এম.এস শেষ করেন কলাম্বিয়া ইউনিভার্সিটিতে। ১৯৫১-১৯৫৪ সালের দিকে তিনি তার প্রথম কর্মজীবন শুরু করেন যা ছিল বাফেট-ফক এন্ড কোম্পানির একজন ইনভেস্টমেন্ট সেলসম‍্যান হিসেবে। 

১৯৫৪ থেকে ১৯৫৬ সালে গ্রাহাম ও নিউম‍্যান কোম্পানির সিকিউরিটি এনালিস্ট হিসেবেও কাজ করেন। এরপর ধীরে ধীরে তিনি তার চেষ্টার দ্বারা ১৯৭০ সালে কোকা-কোলা কোম্পানির ৭% শতাংশ শেয়ার কিনতে সক্ষম হন যার বাজেটমূল‍্য ছিল ১.০২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। 

বাফেটের জীবনে উন্নতির জোয়ার বইতে শুরু করে যখন তিনি বার্কশেয়ার হাটএওয়ে তার শেয়ার বিক্রি শুরু করেছিল যার বাজারমূল্য ছিল ৭,১৭৫ কোটি মার্কিন ডলার। ব‍্যবসায়িক ক্ষেত্রে তার সফল বিনিয়োগ তাকে আজ ধনীদের কাটারে ফেলতে সক্ষম করেছে।

৪) বার্নার্ড আর্নল্ট: 

বার্নার্ড আর্নল্ট

বিশ্বের সেরা ধনী ব‍্যক্তিদের কাতারে চতুর্থ স্থানে রয়েছেন বার্নার্ড আর্নল্ট। তিনি হলেন খ‍্যাতনামা ফ‍্যাশন প্রতিষ্ঠান লুই ভিটনের সিই। আর্নল্টের মোট সম্পদের পরিমাণ ৭৫ বিলিয়ন ডলার। বার্নার্ড এর পুরো নাম বার্নার্ড আরনাউল্ট। 

তিনি হলেন এলভিএমএইচ ( লুই ভিটন মোয়েট হেনেসি) এর প্রধান নির্বাহী। তিনি শেষ পযর্ন্ত দুটি ব‍্যবসা একত্রিত করে গঠন করেন। লুই ভুটন হলো অত‍্যন্ত সফল বিলাসবহুল ফ‍্যাশন ব্র‍্যান্ড, এবং মোয়েট হেনেসি একীভূত চ‍্যাম্পেইন। বার্নার্ড জন্মগ্রহণ করেন ৫ই মার্চ, ১৯৪৮ সালে, ফ্রান্সের রাউবাইক্স এ। পড়াশোনা করেন আলমা ম‍্যাটার ইকোলে পলিটেক্নিকে এবং প‍্যালেসাইউতে। 

তিনি পেশায় বতর্মানে উদ‍্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, আর্ট সংগ্রাহক ও মিডিয়া স্বত্বাধিকারী।

৫) মার্ক জুকারবার্গ : 

মার্ক জুকারবার্গ

বিশ্বের সেরা নন্দিত প্রতিষ্ঠান ফেইসবুক এর একমাত্র প্রতিষ্ঠাতা হলেন মার্ক জুকারবার্গ। তিনি হলেন সেরা ধনীর তালিকায় পঞ্চম স্থানে। তার জন্ম ১৪ই মে,১৯৮৪ সালে, হোয়াইট প্ল‍্যানস এ, নিউইয়র্ক এর মার্কিনযুক্তরাষ্ট্রে। তিনি ১৯৯৮ -২০০০ সালে আর্ডসলে হাই স্কুলে তার স্কুলজীবনের পড়াশোনা শেষ করেন।

 এরপর ২০০০ সালে ফিলিপস এক্সেটার একাডেমিক এ ভর্তি হন। এরপর ২০০২ সালে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে তার ইন্জিনিয়ারিং এর পাঠ চুকিয়ে চাকরিতে প্রবেশ করেন। 

তিনি ২০০৪ সালে ফেইসবুক নামক একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ‍্যম তৈরির মাধ‍্যমে অধিক জনপ্রিয়তা লাভ করেন। তার বর্তমান সম্পদের মোট মূল‍্য ৭৬.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এছাড়াও তিনি চ‍্যান জাকারবার্গ ইনশিয়েটিভের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও সহ-প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। কেমব্রিজের ডেটা কেলেঙ্কারি ও ফেসবুক শেয়ারের দাম কমে যাওয়ার কারণে যদিও তার জনপ্রিয়তা বর্তমানে কিছুটা কমে গিয়েছে।

৬) ল‍্যারি এলিসন: 

ল‍্যারি এলিসন

ল‍্যারি এলিসন হচ্ছেন ওরাকল কোম্পানির সহ প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর পযর্ন্ত তিনি এই প্রতিষ্ঠানের সিইও ছিলেন। তার জন্ম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটিতে, ১৭ ই আগষ্ট ১৯৪৪ সালে। তিনি পড়াশোনা করেছেন ইলিয়ন ইউনিভার্সিটি অফ আরবানায়। তিনি উক্ত ইউনিভার্সিটির চ‍্যাম্পিয়ন হিসেবে পরিচিত ছিলেন। 

এর পাশাপাশি তিনি শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়াশোনা করেছেন। তার বর্তমানে সম্পদের মোট মূল‍্য ৬৯.৭ ইউ এস ডলার। অবিশ্বাস হলেও ওরাকল কর্পোরেশনে বর্তমানে বাণিজ্যিক খাতে একটি সফল প্রতিষ্ঠান। বতর্মানে এখানে ১ লক্ষ ৩৬ হাজার জনেরও বেশি লোক নিযুক্ত আছেন। তাই বিশ্বের ধনী ব‍্যক্তিদের তালিকায় তিনি ষষ্ঠ স্থানে রয়েছেন।

৭) আমানসিও আর্টেগা : 

আমানসিও আর্টেগা

মধ‍্যবয়সী হাসোজ্জল  মুখের অধিকারী আমানসিও আর্টেগা হলেন একজন স্পেনীয় উদ‍্যোক্তা এবং ইন্ডাইটেক্স ফ‍্যাশন গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা। ইন্ডাইটেক্স হচ্ছে জারার মালিক আর জারা’র নাম এ যুগের পোশাকের ব্রান্ডের যে অন‍্যতম নাম তা একজন গাঁধা ও জানে। সম্পদশালি আর্টেগা তাই ধনীদের তালিকায় রয়েছেন সপ্তম স্থানে। তার মোট সম্পদের বর্তমানের মূল‍্য ১১ বিলিয়ন ডলার। তিনি জন্মগ্রহণ করেন ২৪ শে মার্চ ১৯৩৬ সালে, বাসডাঙ্গো ডি আরবস, ক‍্যাসটিল লেন এর স্পেন শহরে। তিনি বতর্মানে ইনডাইটেক্স ও দায়েজ নামক দুটি প্রতিষ্ঠানেরই সিইও এবং সিওও।

৮) ল‍্যারি পেজ : 

 ল‍্যারি পেজ

আজকাল খাবার দাবার রান্না থেকে শুরু করে যাবতীয় খুঁটিনাটি সবকিছুতে আমরা গুগল করতে বেশি পছন্দ করে থাকি। গুগল যেন সবজান্তা হয়ে আমাদের সকল সমস‍্যা নিমিষেই সরিয়ে দিচ্ছে। এই সবজান্তা গুগলের প্রতিষ্ঠাতা আর কেউ নন তিনি হলেন ল‍্যারি পেজ। যার বতর্মান সম্পদের মোট মূল‍্য ৬৬.৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। 

তিনি হলেন গুগলের একমাত্র সহ প্রতিষ্ঠাতা যার জন্ম হয়েছিল গ‍্যারেজে ১৯৯৮ সালে। 

ল‍্যারি পেজের জন্ম ২৬ শে মার্চ, ১৯৭০ সালে মার্কিনযুক্তরাষ্ট্রের ল‍্যানসিং মিশিগানে। তিনি আলমা ম‍্যাটার মিশিন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএস এবং স্ট‍্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি থেকে এমএস কমপ্লিট করেন। তিনি পেশায় একজন সফটওয়্যার ইন্জিনিয়ার এবং ইন্টারনেটের উদ‍্যোক্তা হিসেবে গুগলের কো-ফাউন্ডার হিসেবে অত‍্যধিক জনপ্রিয়। এছাড়াও তিনি পেজ র‍্যাংক ও আলপাবেট ইনক এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে সমাদৃত। বর্তমানে তিনি ধনীদের তালিকায় অষ্টম স্থানে রয়েছেন। 

৯) সের্জেই ব্রিন:

সের্জেই ব্রিন

ল‍্যারি পেজের নামের সাথে সের্জেই ব্রিনের নাম ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কেননা সের্জেই ব্রিন ও ল‍্যারি পেজ যৌথভাবে গুগল সার্চ ইন্জিন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। গুগলকে সাফল‍্যের সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছে নেওয়ার জন‍্যে এদের দুজনের অবদান কিন্তু কম নয়। সের্জেই বিন গুগলের সহ প্রতিষ্ঠা হিসেবে সর্বজনীন হওয়ায় তিনি ধনীদের তালিকায় নবম স্থানে রয়েছেন।

সের্জেই ব্রিনের জন্ম ২১ অগাষ্ট ১৯৭৩ সালে মস্কো রাশিয়ান একটি এসএফআর, সোভিয়েত ইউনিয়নে। ল‍্যারি পেজের মতো তিনিও আলমার মাটারল‍্যান্ড থেকে বিএস ও স্ট‍্যানফোর্ড থেকে এম.এস কমপ্লিট করেন। তিনি আলপাবেট ইনক এর সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং গুগলের আন্তঃরক্তা উদ‍্যোক্তা। তার মোট সম্পদের মূল‍্য ৬৪.০১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০২০ সাল পযর্ন্ত যার বাজার মূল‍্য ৬৪.১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। গুগলের যাত্রা শুরুর প্রথম থেকেই তিনি ছিলেন একজন সৃজনশীল কারিগর। ১৯৯৮ সালের সেই গ‍্যারেজে তৈরি গুগল আজ নিমিষেই যে কোন সমস‍্যার সমাধান করতে সক্ষম। যা সের্জেই বিন ও ল‍্যারি পেজ ছাড়া সম্ভব হতো না। 

১০) কার্লোস স্লিম হেলু: 

কার্লোস স্লিম হেলু

কার্লোস স্লিম হেলু জন্মগ্রহণ করেন মেক্সিকো সিটিতে, ২৮ শে জানুয়ারি ১৯৪০ সালে। বিশ্বের ধনীর তালিকায় তার অবস্থান দশমে। তিনি পেশায় একজন ব‍্যাবসায়ী। তার সফল ব‍্যবসা প্রতিষ্ঠানটির নাম “গ্রুপো কারসো” যা অনেকগুলো অনেকগুলো সংস্থা নিয়ে গঠিত। এদের মধ‍্যে স্বাস্থ‍্যসেবা, মিডিয়া শক্তি, রিয়েল এস্টেট, এবং খুচরা হিসেবে অনেকগুলো নামি-দামি ব্রান্ডের সাথে যুক্ত। তার মোট সম্পদের পরিমাণ ৬৩.৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। তিনি পড়াশোনা করেছেন মেক্সিকান সিভিল ইন্জিনিয়ারিং এর একটি কলেজে।

যদিও গেলো বছর তার সম্পদের চরম অধঃপতন হয় তবুও ধনীদের তালিকা থেকে তার নাম একটু ও সরেনি। 

কার্লোসের বর্তমান বয়স ৮০ এই বছর তিনি ৮১ তে পা রাখবেন।  

শেষ কথা :

মানুষে মানুষে সুখের সংজ্ঞা ভিন্ন। সফলতার কোন শর্টকার্ট যেমন হয় না তেমনি সফল হবার পর তা ধরে রাখাটাও অতীব জরুরি। প্রতিদিন পৃথিবীর ধনীর তালিকায় নতুনদের নাম যোগ হচ্ছে এ যেন অনেকটা দাবা খেলার মতো। নতুন চালে নতুন নতুন রাজার দেখা মিলছে। বিশ্বের তালিকায় এই দশজন সম্রাটের প্রত‍্যকেই সফল ব‍্যক্তি। এদের থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার রয়েছে। যদি মার্ক জুকারবার্গ এর দিকে তাকাই তার জীবনে পরাজয়ের পরে বিজয়ের মুকুট আসতে সময় লাগেনি। চেষ্টা, ধৈর্য্য ও অক্লান্ত পরিশ্রম ই মানুষকে তার সফলতার শীর্ষে পৌছতে সাহায্য করে। 

পৃথিবীর সেরা দশজন ধনী ব‍্যক্তির তালিকা থেকে আমরা এই শিক্ষাই পেয়ে থাকি। আর তাই আমাদের প্রত‍্যেকরই উচিত নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন এর জন‍্যে প্রাণপণে চেষ্টা করা।

Explore More:

রংবদলের রঙিন খেলা পেরুর ভিনিচুনকা

Recent Posts