রহস্যের গভীরতায় অতল গহীন সমুদ্র


পৃথিবীর ভূ-পৃষ্টের  দুই-তৃতীয়াংশ-ই পানি। আর এই পানির সিংহভাগ পানি-ই রয়েছে সমুদ্রে।যা এক পলক দেখলে মনে হয় যেন –এর কোনো সীমাপরিসীমা নাই। যতদুর চোখ যায় শুধুই পানি আর পানি;যা অস্থিরতা সরিয়ে মনে এক প্রশান্তি বয়ে আনে। তবে এই নির্মল সৌন্দর্য শুধু-ই সৌন্দর্য নয়।

এর অতল গহীনে লুকিয়ে আছে কত-ই না অজানা রহস্য; যা শুধুই রোমাঞ্চকর নয়, অনেক প্রশ্নেরও জবাব না দিয়েই আমাদের গোলকধাঁধা তে ফেলে যায়। জানেন কি এই রহস্যগুলো কি কি? আসেন এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে জেনে নিন। দেখা যাক কোন রহস্যটা আপনার মনে সবচেয়ে বেশি কৌতুহল জাগায়।

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলঃ-

সমুদ্রের রহস্যের পাতা উল্টাতে গেলে “বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল” এর কথা সবার আগে আসে মাথায়।কথিত “বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল” অবস্থান পশ্চিম আটলান্টিকের কোনো এক বিশেষ স্থানে;যার সঠিক অবস্থান নিয়ে এখনো সুস্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়নি। 

“বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল” নামক জায়গা কে “শয়তানের ত্রিভুজ” নামেও পরিচিত। কথিত আছে -এই অঞ্চলের উপর দিয়ে জাহাজ বা উড়োজাহাজ যাওয়ার সময় রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়।তবে এর কোনো সায়েন্টিফিক থিওরি আজ পর্যন্ত দাঁড় করানো সম্ভব হয়নি।

তাই এটা মানা বা না মানাও যেকোনো মানুষের ব্যক্তিগত ইচ্ছে।তাই হয়তো অনেকেই এই ব্যাপার টা মানেন না।অনেকের ধারণা, এগুলো শুধু-ই সমকালীন ঘটনা। যার কারণ হতে পারে প্রাকৃতিক দুর্যোগ অথবা চালকের অসাবধানতা।কিন্তু কিছু উপকথা অনুসারে এসবের পেছনে দায়ী কোন অতিপ্রাকৃতিক শক্তি।এই রহস্য লেখকদের আগ্রহও কম টানেনি বটে।বিশ্বজুড়ে বহু লেখক এই বিষয় নিয়ে লেখালেখি করেছেন এবং অতিরঞ্জিত করে উপস্থাপন করেছেন এই কথাও অস্বীকার করা যায় না।তবে দিনশেষে ঠিকই এই রহস্য আমাদের কৌতুহলী করে।কারণ বিশেষজ্ঞরা এখনও এর উপর কাজ করছেন এবং রহস্য উন্মোচন করতে পারেন নি।

সমুদ্রের তলঃ-

যেহেতু ভূ-পৃষ্টের  দুই-তৃতীয়াংশ-ই পানি,সেহেতু 

দুই-তৃতীয়াংশ পৃষ্টের অবস্থান-ই পানির নিচে। কিন্তু কত নিচে?কি-ই বা এর পরিমাপ? এর উত্তর আজও অজানা।কৌতুহলপ্রবণ মানুষ কিন্তু নিরন্তর এই নিয়ে কাজ করছেন। সমুদ্র সম্পর্কিত বিশেষজ্ঞরা তাদের নিরন্তর গবেষণা দিয়ে সমুদ্রের বিভিন্ন স্থানের পরিমাপ বের করেছেন বটে।কিন্তু এই সুবিশাল জলরাশির বেশিরভাগ অংশের গভীরতার পরিমাপ-ই আমরা জানিনা।যা গুটিকয়েক জানতে পেরেছি তা খুবই নগন্য পুরো বিশ্বের জলরাশির তুলনায়। 

তাই সমুদ্র তলের গভীরতা নিয়ে আমাদের মনের বিস্ময় আজও রহস্য হয়ে পর্দার পেছনেই রয়ে গিয়েছে। 

ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেলঃ-

পৃথিবীতে এমন কিছু স্থান রয়েছে বলে ধারণা করা হয় যেখানে চৌম্বকীয় আকর্ষণ অনেক বেশি।আর ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেলও এই জায়গা গুলোর একটা বলা যায়।ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেল এর অবস্থান জাপান আর বোনিন দ্বীপের মাঝখানে সাগরের মাঝে।একে ডেভিলস সী বা শয়তানের সাগরও বলা হয়ে থাকে।জাপানের এর উপকথা মতে,এখানে বাস করছে এক ভয়ানক ড্রাগন; যার ক্ষুধা কখনোই মেটে না। আর তাই প্রায়ই সে তার কাছে আসা জাহাজ আর মানুষকে নিজের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করে।

ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেল এর অবস্থান বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের বিপরীতে হলেও, এই ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেল নিয়েও রহস্য এর কমতি নাই।এখন পর্যন্ত অগণিত জাহাজ এবং উড়োজাহাজ নিখোঁজ  হয়ে গিয়েছে এই এরিয়া থেকে।যার কোনো হদিস মেলে নি আজও। এই সকল ঘটনার কারণে ১৯৫০ সালে ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেলকে অনিরাপদ বলে ঘোষণা দেয়া হয়।যদিও এতেও মানুষ শান্ত হয়নি।কৌতুহলবশত তাদের গবেষণা চলমান রেখেছে আজও।

তবুও রহস্য আজও অধরা রয়ে গিয়েছে। 

আর্কটিক সাগরের রহস্যঃ-

মালবাহী ও যাত্রীবাহী জাহাজ নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা শুধু বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল আর ড্রাগন ট্রায়াঙ্গেল পর্যন্ত সীমাবদ্ধ নয়;বরং এই ঘটনা বারবার ঘটতে দেখা যাচ্ছে আর্কটিক সাগরের বিভিন্ন জায়গায়ও।

কখনো যাত্রীবাহী জাহাজসহ নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনা সামনে আসে।আবার কখনো জাহাজ যথারীতি পড়ে থাকে।কিন্তু মানুষগুলো নিখোঁজ হয়ে যায়।কোথায়, কখন বা কীভাবে কি হচ্ছে তা কারোর জানা নেই।

শুধু তাই-ই নয় কখনো এক রহস্যময় জাহাজের সন্ধানও পাওয়া গিয়েছে যার মালিকানার কোনো খোঁজ পাওয়া যায় নি।যা আজও আমাদের জন্য খুবই রহস্যময় একটা ঘটনা হিসেবে রয়ে গিয়েছে। 

অনাবিষ্কৃত সমুদ্রের প্রাণীঃ-

সমুদ্রে না জানি কত না কত প্রজাতির প্রাণী জীবন নির্বাহ করে।আমরা হয়তো বহু জাত এর প্রাণী সম্পর্কে এই যাবত  জেনেছি।কিন্তু মানুষের কৌতুহলী মন এতেই সন্তুষ্ট নয়।তারা আরও জানতে চাই।

মাঝে মাঝেই এমন কিছু ঘটনা ঘটে সমুদ্রে যে ঔ সকল ঘটনার ব্যাখ্যা আবিষ্কার হওয়া প্রাণীর মধ্যে পাওয়া যায় নি।যেমনঃ- কিছুদিন আগে সমুদ্রের এক স্থানে কিছু ডুবুরি কিছু অদ্ভুত সুন্দর শব্দ শুনতে পায়।কিন্তু বহু গবেষণা করেও শব্দ সৃষ্টিকারী এই সকল প্রাণীদের সম্পর্কে তেমন কোনো প্রাণী আবিষ্কার করা সম্ভব হয়নি।এভাবে এই সকল প্রাণী মানবমনের মধ্যে রহস্য তৈরী করে।

Explore More:
পৃথিবীর সেরা দশটি বিপজ্জনক জায়গা ও তাদের চাঞ্চল্যকর কিছু তথ‍্য

Recent Posts